ডিসেম্বর ১০, ২০২২

লক্ষ্মীপুর নিউজ

দিন বদলের প্রত্যয়ে

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগ নেতা ইফতির আয়োজনে শেখ হাসিনার কারান্তরীন দিবসে আলোচনা সভা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বর্তমানে সভাপতি প্রার্থী এইচ,এম মাঈন উদ্দিন ইফতির আয়োজনে দেশরত্ন শেখ হাসিনার কারান্তরীন দিবস উপলক্ষ্যে কোরআন তেলাওয়াত, দোয়া, মিলাদ মাহফিল, র‍্যালি ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ১৬ জুলাই শনিবার দুপুরে পৌর শহরের একটি মাদ্রাসায় কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়ার অনুষ্ঠান ও বিকেলে শেখ হাসিনার কারা অন্তরীণ দিবস উপলক্ষে শহরে র‍্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ গেইট থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পৌর আধুনিক বিপনী বিতানের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে শেষ হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ও লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এড. রাসেল মাহমুদ ভূঁইয়া মান্না, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটির সদস্য মনিরুজ্জামান পাটোয়ারী, জেলা ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি জাকির আল মামুন ভুঁইয়া, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য মোঃ আশরাফুল আলম, লক্ষ্মীপুর সরকারী কলেজ ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি আমজাদ হোসেন আজিম, জেলা ছাত্রলীগ সাবেক সহ-সভাপতি জালাল উদ্দীন রুমি পাটওয়ারী, জেলা ছাত্রলীগ সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহাগ পাটওয়ারী, সাবেক ছাত্রনেতা ছগির আহমেদ ইমন পাটোয়ারী প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, ২০০৭ সালের এই দিনে ১/১১ এর সরকারের মিথ্যা-বানোয়াট, হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। সেদিন ভোরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় দুই সহস্রাধিক সদস্য সম্পূর্ণ বে-আইনিভাবে শেখ হাসিনার ধানমন্ডির বাসভবন সুধাসদন ঘেরাও করে রাখে। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে যৌথবাহিনীর সদস্যরা শেখ হাসিনাকে সুধাসদন থেকে বের করে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করেন। তৎকালীন অবৈধ ও অসাংবিধানিক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নীলনকশা অনুযায়ী আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই ঘণ্টা আগেই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার জামিন আবেদন আইন বহির্ভূতভাবে না মঞ্জুর করা হয়।
শেখ হাসিনা আদালতের গেটে দাঁড়িয়ে প্রায় ৩৬ মিনিটের অগ্নিঝরা বক্তব্যের মাধ্যমে তৎকালীন সরকারের হীন-রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন। গ্রেফতার পূর্ব মুহূর্তে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা একটি চিঠির মাধ্যমে দেশের জনগণ এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের গণতন্ত্র রক্ষায় মনোবল না হারিয়ে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার আহ্বান জানান।
শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীরা জেগে উঠলে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ষড়যন্ত্র মারাত্মক প্রতিরোধের সম্মুখীন হয়। আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠন ও গণতন্ত্রপ্রত্যাশী দেশবাসীর ক্রমাগত প্রতিরোধ আন্দোলন, বঙ্গবন্ধুকন্যার আপোষহীন ও দৃঢ় মনোভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৮ সালের ১১ জুন দীর্ঘ ১১ মাস কারাভোগ ও নানামুখী ষড়যন্ত্রের পর তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।
শেখ হাসিনার মুক্তির মধ্য দিয়ে এ দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার পুনরায় ফিরে আসে। যুগপৎভাবে বিকাশ ঘটে গণতন্ত্র ও উন্নয়নের। আওয়ামী লীগ এবং তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন দিনটি ‘শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস’ হিসেবে পালন করে থাকে।
এছাড়া এদিন ১৪ জুুুলাই ২০২২ শনিবার লক্ষ্মীপুর পৌর শহরে স্মরণকালের আলোচিত র‍্যালী আয়োজনের জন্য ছাত্রলীগ নেতা মাইন উদ্দিন ইফতিকে ধন্যবাদ জানান সাবেক ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দসহ উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ।

Please follow and like us:
error20
fb-share-icon
Tweet 20
fb-share-icon20