অক্টোবর ২১, ২০২১

লক্ষ্মীপুর নিউজ

দিন বদলের প্রত্যয়ে

লক্ষ্মীপুর আধুনিক হাসপাতালে ভূল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ, ভাঙচুর

নিউজ ডেস্ক :
লক্ষ্মীপুরে ডাক্তার এসহাক ভূঁইয়ার ভূল চিকিৎসায় রিজিয়া বেগম নামের এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর নিহত রোগীর বিক্ষুব্ধ স্বজনরা হাসপাতাল ভাঙচুর করে ঘন্টাব্যাপী ওই ডাক্তারকে অবরুদ্ধ করে রাখেন।
শনিবার (১১ মে) ভোরে পৌর শহরের আধুনিক হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে অভিযুক্ত ডাক্তার বলছেন অপারেশন করে রোগীর জ্ঞান ফিরলে বেডে নিয়ে গেলে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যায় রোগী।
হাসপাতাল সুত্র ও নিহতের স্বজনরা জানান, পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল হাইয়ের স্ত্রী রেজিয়া বেগম ভাঙ্গা হাত নিয়ে চিকিৎসার জন্য আসেন আধুনিক হাসপাতালে। শুক্রবার সকালে ভর্তির পর রাত ১০ টার দিকে ওই রোগীকে অচেতন করে হাতের অপারেশন করেন হাসপাতালের অর্থোপেডিক ডাক্তার এসহাক ভূঁইয়া।

অপারেশনের পর থেকে শুক্রবার ভোর রাত পর্যন্ত ওই রোগীর জ্ঞান ফেরেনি বলে অভিযোগ করেন স্বজনরা। এসময় ডাক্তারের পরামর্শে দায়িত্বরত একজন নার্স রোগীকে একটি ইনজেকশান পুশ করে। কিছুক্ষন পর রোগী মারা গেছে বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার পর রোগীর স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে হাসপাতাল ভাঙচুর করে। প্রায় ১ঘন্টা ওই ডাক্তারকে অবরুদ্ধ করে রাখেন তারা। এসময় হাসপাতালের স্টাফ ও নার্সরা সবাই পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
অভিযুক্ত ডাক্তার এসহাক ভূঁইয়া বলেন, ভুল চিকিৎসায় নয় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছে রোগী।
এদিকে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, এর আগেও হাসপাতালটিতে বেশ কয়েকজন রোগী ভূল চিকিৎসার কারণে মারা গেছেন। প্রভাবশালীরা হাসপাতাল পরিচালনার দায়িত্বে থাকায় রহস্যজনক কারণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ হাসপাতালটির বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেননা। এদিকে ওই ঘটনা ধামা চাপা দিতে কয়েকজন দালালের তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মতো, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ নিয়ে ওইসব চিহ্নিত দালালরা বিভিন্ন জনকে ম্যানেজ করতে টাকা বিতরণ করেন বলেও অভিযোগ উঠে। এ তালিকায় সাংবাদিক নামধারী কেউ রয়েছেন বলে সুত্রে জানা যায় ।
সদর থানার এস আই আব্দুল মতিন বলেন, রোগীর মৃত্যু ও হাসপাতাল ভাঙচুরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

Please follow and like us:
error20
Tweet 20
fb-share-icon20