নদীবন্ধর কেন্দ্রীক থানা ও রামগতিতে আসবে পর্যটন পুলিশ : আইজিপি

কামাল উদ্দিন ও জগন্নাথ দাস :
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত লক্ষ্মীপুরের মজু চৌধুরীর হাট নদীবন্ধর কেন্দ্রীক নৌ পুলিশের পাশাপাশি থানা গঠনের প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্টদের আগাতে বললেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। একই সঙ্গে মন্ত্রাণালয় থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতি মেঘনা বীচকে পর্যটন স্পট ঘোষনা করা হলে ওই স্থানে পর্যটকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় অবশ্যই পর্যটন পুলিশ আসবে বলে জানান পুলিশ প্রধান। এই দুই সম্ভাবনা লক্ষ্মীপুরবাসীর জন্য সৌভাগ্যের বলেও মন্তব্য করেন পুলিশের সর্বোচ্চ পর্যায়ের এই কর্মকর্তা।
প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম পাবেলের প্রশ্নের জবাবে চন্দ্রগঞ্জ থানা প্রাঙ্গণে বৃহস্পতিবার (০৭মার্চ) দুপুরে এসব কথা বলেন পুলিশ মহাপরিদর্শক। এছাড়া লক্ষ্মীপুর মড়েল থানার অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও ঝুঁকিমুক্ত করণীয় বিষয়ে আগামী ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন আইজিপি।
জানা যায়,
প্রধানমন্ত্রী মেখ হাসিনা ২০১৭ সালের ১৪ মার্চ লক্ষ্মীপুর সফরে এসে সদরের মজু চৌধুরীর হাট এলাকাকে নদী বন্ধর ঘোষনা করেন। ওই স্থানে লঞ্চ ঘাট, ফেরি ঘাট রয়েছে। এই নৌরুটে দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষ ঢাকা চট্রগ্রামমুখি লাখো মানুষ চলাচল করে। এসব মানুষের পুলিশি নিরাপত্তা এ অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবী । পাশাপাশি রামগতির আলেকজান্ডারে মেঘনার তীর রক্ষা বাঁধকে ঘিরে পর্যটন সম্ভাবনা রয়েছে। বিভিন্ন উৎসবে জেলা ও জেলার বাইরের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজার হাজার মানুষ একটু বিনোদনের জন্য ছুটে আসেন এখানে। এসব মানুষের নিরপত্তায় স্থানীয়দের দাবী হচ্ছে পর্যটন স্পট ঘোষনা ও পর্যটন পুলিশ মোতায়েনের।
এদিকে নিরপত্তা ব্যবস্থায় যারা কাজ করবেন তারাও কাজ করছেন ঝুঁকিতে। সময়ের প্রয়োজনে সদর থানার অবকাঠামোগত উন্নয়ন আরো দরকার। পুলিশের এস আই যারা তারাও ঠিকমতো বসতে পারেননা। পুরাতন ভবনটি নড়বড়ে অবস্থা। প্রায় দেখা যায় ছাদ খসে খসে পড়তে।