মে ৮, ২০২১

লক্ষ্মীপুর নিউজ

দিন বদলের প্রত্যয়ে

বৃষ্টিতে নষ্ট হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ নথি ধসের ঝুঁকিতে লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়

নিউজ ডেস্ক:
লক্ষ্মীপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের দেয়ালের বিভিন্ন অংশে পাটল দেখা দিয়েছে। বেশ কয়েকটি স্থানে ছাদ থেকে আস্তর খসে খসে পড়ে রড বেড়িয়ে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে বর্তমানে ঝুঁকি নিয়ে চলছে জেলা পুলিশের কার্যক্রম। খুব দ্রুত সংস্কার করা না হলে যে কোন মুহুর্তে ভবনটি ধসে পড়ে প্রাণ বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন পুলিশ সদস্যসহ সেবা নিতে আসা মানুষ।
লক্ষ্মীপুর গণপূর্ত অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায়, ১৯৮৬-৮৭ অর্থবছরে লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের দ্বিতল ভবন নির্মাণ করে গণপূর্ত বিভাগ। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ভবনের পশ্চিম পাশে তৃতীয় তলায় সিআইডি অফিস নির্মাণ করা হয়। ওই সময় ভবনের বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দেয়। একই সঙ্গে ছাদ ও দেয়ালের আস্তর খসে পড়তে থাকে। সর্বশেষ ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ভবনটির পূর্ব পাশে নতুন ৩য় তলার সম্প্রসারণ কাজ শুরু করা হয়। কাজ চলমান অবস্থায় ভবনটিতে ফাটল বাড়তে থাকে। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়। এরই মধ্যে ২য় তলায় অভ্যর্থনা কক্ষের ছাদ থেকে আস্তর খসে পড়ে আহত হন এক পুলিশ কনস্টেবল। পুলিশের গোপনীয় শাখা, প্রধান সহকারীর কক্ষ ও হিসাব শাখাসহ প্রায় সব কক্ষেই এমন অবস্থা বিরাজ করছে এখন। রবিবার (২২ জুলাই) পুলিশ সুপার কার্যালয়ে গিয়ে দেখা গেছে যে কোন মুহুর্তে ভবন ধস হতে পারে এমন আতঙ্কে হেলমেট সাথে নিয়ে অফিস করছে পুলিশ। বৃষ্টিতে পানি পড়ে আসবাবপত্র ও গুরত্বপূর্ণ কাগজপত্র ভিজে নষ্ট হচ্ছে। পলিথিন দিয়ে ডেকে রক্ষার চেষ্টা করতে দেখা গেছে। কার্যালয়ের কর্মকর্তা, ফোর্স ও দাপ্তরিক কর্মচারীরা আতঙ্কের মধ্যেই কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ক্যামরার সামনে বক্তব্য দিতে রাজি হননি পুলিশ সদস্য কেউ। এদিকে ভবন ধসে বড় ধরণের দূর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন সেবা নিতে আসা লোকজনসহ সংশ্লিষ্টরা।
পুলিশ সুপার আ স ম মাহতাব উদ্দিন ভবনের আস্তর ও বিভিন্ন স্থানে পাটলের কথা স্বীকার করে বলেন, ‘পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও গণপূর্ত বিভাগ ভবন পরিদর্শন করে ফয়সালার চেষ্টা করছেন। তবে কখন দূর্ঘটনা ঘটে সে বিষয়ে কিছুটা আতঙ্ক আছে।’
গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুস সাত্তার বলেন, ‘পুলিশ সুপারের কার্যালয় পরিদর্শন করা হয়েছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সংস্কার করা হবে।’